উদ্বোধনের আর মাত্র
০০
দিন
০০
ঘণ্টা
০০
মিনিট
০০
সেকেন্ড

স্বস্তি ফেরানোর বাজেট, তবে বাস্তব চিত্র ভিন্ন!

প্রকাশিত: জুন ১১, ২০২২, ০৭:২৫ বিকাল
আপডেট: জুন ১১, ২০২২, ০৭:২৫ বিকাল
আমাদেরকে ফলো করুন

প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতি কমিয়ে নিত্যপণ্যের বাজারে স্বস্তি ফেরানোর ঘোষণা দিয়েছে সরকার। তবে বাস্তব চিত্র ভিন্ন। বাজারে ঢুকে আশ্বাস বা পরিকল্পনার সঙ্গে হিসেব মিলছে না ভোক্তার। এদিকে, শুল্ক সুবিধা দিয়ে অনেক পণ্যের দাম কমানো হলেও, সুবিধা যাবে ব্যবসায়ীদের পকেটেই। বঞ্চিত হবেন ভোক্তা। এমনটাই মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

করোনার প্রভাব আর রাশিয়া-ইউক্রেন সংকটে টালমাটাল বিশ্ব অর্থনীতির গতিবিধি মাথায় রেখেই আগামী অর্থবছরের বাজটে প্রস্তাব করেছে সরকার। এ বাজেটেই ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে স্বস্তি ফিরছে নিত্যপণ্যের বাজার।

 
এ সুসংবাদ বুঝতে চলুন আগে বুঝে আসি মূল্যস্ফীতি কী!
 
সহজ কথায়- একই মানের একই পরিমাণ পণ্য কিনতে আগের চেয়ে যত টাকা বেশি ব্যয় করতে হয় ভোক্তাকে- তাই-ই মূল্যস্ফীতি। যেমন বর্তমানে দেশে মূল্যস্ফীতি রয়েছে ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ। এর মানে হলো আগে যে পণ্য ১০০ টাকায় কেনা যেত এখন তা কিনতে ৬ টাকা ২৯ পয়সা বেশি লাগে। এবার বাজেটে এ মূল্যস্ফীতি ধরা হয়েছে ৫ দশমিক ৬ শতাংশ। অর্থাৎ এখন যা কিনতে ১০৬ টাকা ২৯ পয়সা ব্যয় করতে হচ্ছে আগামী দিনে তা কেনা যাবে ১০৫ টাকা ৬০ পয়সাতে।
 
বাজারে কি আসলেই স্বস্তি ফিরছে? কী ভাবছেন ভোক্তা ও বিক্রেতারা?
 
ভোক্তারা বলছেন, দাম কিছুই কমেনি। আগের মতোই আছে। এমনকি কিছু কিছু পণ্যের দাম উল্টো বেড়ে গেছে।
 
অনেক পণ্যের দাম সরাসরি কমিয়েও ভোক্তাদের স্বস্তি দেয়ার ঘোষণাও রয়েছে বাজেটে। তার কি কোনো প্রভাব পড়বে নিত্যপণ্যের বাজারে, এ ব্যাপারে সন্দিহান অর্থনীতিবিদরা।
 
অর্থনীতিবিদ তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, নিত্যপণ্যের দাম কমলে মানুষ উপকার ভোগ করতে পারবে। ধারণা করা হয়েছিল মূল্যস্ফীতি কমাতে পদক্ষেপ নেয়া হবে। কিন্তু বাজেটে এমন কোনো বাস্তবিক পদক্ষেপ দেখা যায়নি। এতে করে আদৌ নিত্যপণ্যের দাম কমবে কিনা তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। 
এবার বাজেটে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ। এখানেও বোঝানো হয়েছে বৈশ্বিক পরিস্থিতি যেমনই থাকুক স্বাভাবিক গতি ধারায় রয়েছে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড। ঊর্ধ্বমুখী নিত্যপণ্যের দামে বাজার বাস্তবতা যেমনই হোক কাগজে-কলমে মূল্যস্ফীতি কমিয়ে স্বস্তি ফেরানোর যে ত্বত্ত্ব দিয়েছে সরকার তা কতোটা কাজে আসে তাই-ই এখন দেখার অপেক্ষায় ভোক্তারা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়