আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অর্থ সংগ্রহের ৬ অ্যাকাউন্ট বন্ধ

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৫, ২০২২, ০১:৫৪ দুপুর
আপডেট: জানুয়ারী ২৫, ২০২২, ০১:৫৪ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের তহবিল সংগ্রহের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে আর্থিক লেনদেনের ছয়টি অ্যাকাউন্ট বন্ধের অভিযোগ তোলেন শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক-বর্তমান শিক্ষার্থীসহ দেশ-বিদেশের বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সাত লাখ ৫৪ হাজার ৮১৮ টাকা সংগ্রহ করেছেন শিক্ষার্থীরা। ‘ফান্ড ফর সাস্ট’ নামের এই তহবিলে সংগৃহীত টাকা আন্দোলনের বিভিন্ন খাতে ব্যয় করা হচ্ছে।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে আর্থিক যোগান নিশ্চিত করতে ইস্টার্ন ব্যাংকের একটি, বিকাশের তিনটি, রকেট ও নগদের একটি করে অ্যাকাউন্ট রয়েছে।

কিন্তু সোমবার সন্ধ্যার পর থেকে এসব অ্যাকাউন্টে আর কোনো লেনদেন করা যাচ্ছে না। এমনকি এই ফোন নম্বরগুলো থেকে কল দিতে পারছেন না এবং কোনো কলও ঢুকছে না। তবে কে বা কারা অ্যাকাউন্ট বন্ধ করতে পারে এ বিষয়ে কেউ কিছু বলতে পারেননি।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র সাদিয়া আফরিন বলেন, আমাদের আর্থিক লেনদেনের সব অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এসব ষড়যন্ত্রের অংশ। এভাবে ষড়যন্ত্র করে কেউ আমাদের আন্দোলন বন্ধ করতে পারবে না।

‘ফান্ড ফর সাস্ট’ নামের একটি অনলাইন গ্রুপের সূত্রমতে, খন্দকার শিহাব উদ্দিনের ইস্টার্ন ব্যাংকের চৌহাট্টা শাখার একটি অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে টাকাগুলো দেশের ভেতর ও বাইরে থেকে আসছে। শিহাবের হিসাব নম্বর-০৯৫৯১০৮৫৫ অর্থ সংগ্রহে ব্যবহৃত হচ্ছে। এ ছাড়াও আরিফ, শিহাব, জুনায়েদ, জুবায়ের ও নাদের চৌধুরীর মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে অর্থ সংগ্রহ করা হচ্ছে।

অর্থ সংগ্রহের দায়িত্বে আছেন অর্থনীতি বিভাগের সাবেকে শিক্ষার্থী মাজহারুল হক পিতুল, জোবায়ের আহমেদ, শুভময় শুভ, নাদের চৌধুরী, খন্দকার শিহাব উদ্দিন শিহাব, রিশাত প্রতীক, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের আদনান রহমান ও সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগের সৌরভ সংলাপ চাকমা।

‘ফান্ড ফর সাস্ট’র হিসাব দেখাশোনা করছেন খন্দকার শিহাব উদ্দিন শিহাব। আর খরচের হিসাব দেখাশোনার দায়িত্বে আছেন মীর রানা। সংগৃহীত তহবিলে চার লাখ ৮৮ হাজার ৪৯০ টাকা খরচের পর অবশিষ্ট আছে দুই লাখ ৪৬ হাজার ৪৪৮ টাকা। ব্যয়ের বড় একটি অংশ চিকিৎসা ও প্রতিদিন তিন হাজার মানুষের খাবারে খরচ হয়েছে বলে জানা গেছে।

যোগাযোগ করলে বিকাশ সিলেটের ডিস্ট্রিবিউটর নাসিম হোসাইন বলেন, অ্যাকাউন্ট বন্ধ করার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। বিকাশে লেনদেনের কিছু নিয়ম আছে। ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা ও ব্যবসয়িক অ্যাকাউন্ট থেকে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত লেনদেন করা যায়। এর বেশি হলে অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়