ভূরুঙ্গামারীতে সরকারিভাবে চাল ক্রয় করতে মিলাররা চুক্তিবদ্ধ হননি

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৭, ২০২২, ১০:৩৬ রাত
আপডেট: নভেম্বর ২৭, ২০২২, ১০:৩৬ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও ভূরুঙ্গামারীতে  মিলাররা এখনো খাদ্য বিভাগের সাথে চাল জমাদানের জন্য চুক্তিবদ্ধ হননি। এর ফলে চলতি মৌসুমে সরকারিভাবে আমন চাল ক্রয় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, চলতি মৌসুমে ২২-২৩ অর্থ বছরে উপজেলায় প্রতি কেজি চাল ৪২ টাকা দরে ৩৬৫১.৯৯ মেট্রিক টন চাল ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়েছে । এ উপজেলায় মোট মিলারের সংখ্যা ১৩৩টি। গত ২৬ নভেম্বর সরকারের সাথে মিলারের চুক্তিবদ্ধ হবার শেষ দিন ছিল। কিন্তু একজন মিলারও চুক্তিবদ্ধ হননি। পরে চুক্তির মেয়াদ ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আব্দুল আহাদ জানান, বর্তমান বাজারে ধানের মূল্য ১১শ’ থেকে ১২শ’ টাকা। ধান ক্রয় করে চাল তৈরি ও মিটার পাশের জন্য চাল শুকানো ও গুদাম পর্যন্ত চাল পরিবহন এবং মোট বিলের ওপর মিলারদের ২% উৎসকর ধার্য্য করায় মিলাররা চাল দিতে আগ্রহী হচ্ছে না। তবে সরকারিভাবে সমঝোতা করার চেষ্টা চলছে।

উপজেলা মিল মালিক সমিতির সম্পাদক ও আন্ধারীঝাড় ইউপি চেয়ারম্যান জাবেদ আলী মন্ডল জানান, বর্তমান বাজারে ধানের দাম বেশি। বাজারে পর্যাপ্ত ধানও নেই। চড়া মূল্যে ধান ক্রয় করে গুদামে চাল সরবরাহ করা সম্ভব নয়। এছাড়া এবছর মোট বিলের ওপর ২% উৎসকর ধরা হয়েছে। এজন্য মিলাররা চুক্তিবদ্ধ হচ্ছে না।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়