“আমাকে ক্ষমা করিও” চিরকুট লিখে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৩, ২০২৩, ০৫:২৪ বিকাল
আপডেট: জানুয়ারী ২৩, ২০২৩, ০৬:১৭ বিকাল
আমাদেরকে ফলো করুন

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের কাউনিয়ায় “আমাকে ক্ষমা করিও” চিরকুট লিখে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন সুরমা খাতুন (১৮) নামে এক কলেজ শিক্ষার্থী।সোমবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার হারাগাছ ইউনিয়নের সোনাতন চিলমারী টারি গ্রামে নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।  

সুরমা খাতুন মীরবাগ কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছেন এবং সোনাতন চিলমারী টারি গ্রামের সহিদুল ইসলামের মেয়ে। তিন ভাইবোনের মধ্যে সে সবার বড়। 

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় রোববার রাতে খাবার খেয়ে নিজ ঘরে ঘুমায় সুরমা। সোমবার ভোরে নামাজ পড়ার জন্য পাশের ঘর থেকে সুরমাকে ডাকাডাকি করেন মা দোলেনা বেগম। মেয়ের সাড়া না পেয়ে দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে দেখতে পান মেয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় আছেন। তার চিৎকারে পরিবারের লোকজন এসে মেয়েটির মরদেহ খাটে নামিয়ে ফেলেন। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল যায়। 

হারাগাছ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল গফুর জানান, মেয়েটি খুবই ভালো। নামাজ পড়তেন এবং কোরআন তেলওয়াত করেন। সম্প্রতি সে মীরবাগ কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছে। পরীক্ষায় ভালো ভাবে লিখতে পারে নাই। আর পরীক্ষার রেজাল্ট খারাপ হলে বাবা-মা বকা দেবেন, এমন ভয়ে সে আত্মহত্যা করতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। 

সুরমার মা দোলেনা বেগম বলেন, রোববার রাতে মেয়ে আমাকে বলে মা আমার রেজাল্ট ভাল না হলে আমার ওপর রাগ করো না। আমার মেয়ে পরীক্ষার ফলাফল খারাপ হবে ভয়ে  রাতের যে কোনো সময় ঘরের মধ্যে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। ঘটনার স্থান থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ।

তিনি বলেন, মৃত্যুর আগে লেখা সুইসাইড নোটে ওই শিক্ষার্থী উল্লেখ করেছেন, আমার মুত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়। আমার জন্য সবাই দোয়া করিও। ক্ষমা করিও সবাই। সবাই দোয়া করিও। মেয়েটি কেন আত্মহত্যা করলো তা উদ্ঘাটনে কাজ করছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়