রাণীনগরে আগাছানাশক ছিটিয়ে আলু গাছ ও ধানের চারার ক্ষতি

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৩, ২০২৩, ০৮:২৭ রাত
আপডেট: জানুয়ারী ২৩, ২০২৩, ০৮:২৭ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগরে কৃষকের প্রায় দুই মন ধানের চারাগাছ এবং এক বিঘা আলুর জমিতে ক্ষতিকারক আগাছানাশক ছিটিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় রাণীনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এর আগেও ওই কৃষকের পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে প্রায় ২লাখ টাকার মাছ নিধন করা হয়েছে। ঘটনাটি উপজেলার পারইল ইউনিয়নের বেলতা গ্রামে।

জানা গেছে, বেলতা গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে লেবু হোসেন, মুক্তার হোসেন ও শাহজাহান আলী জানান, তিন ভাই মিলে চলতি মৌসুমে ২৭বিঘা জমিতে বোরো ধান রোপণের জন্য প্রায় দুই মন জিরা জাতের ধানের বীজ বোপন করেন। এরই মধ্যে ধানের চারাগাছ প্রায় রোপণের উপযুক্ত হয়েছে। হঠাৎ করেই দেখতে পান ধানের চারাগুলো হলুদবর্ণ হচ্ছে।

এছাড়াও লাগানো এক বিঘা জমির আলু গাছও হলুদ হয়ে মরে যাচ্ছে। স্থানীয়ভাবে কৃষি পরামর্শকদের কাছে থেকে পরামর্শ নিয়ে উপর্যপুরি পানি স্প্রে করেও কোন ফল হচ্ছে না। সবগুলো ধানের চারা গাছ মরে যাচ্ছে। এঘটনায় গত রোববার সন্ধায় রাণীনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তারা বলেন, রাতের অন্ধকারে কে বা কাহারা আগাছানাশক স্প্রে করেছে। ফলে ধানের চারা মরে যাওয়ায় চলতি বোরো ধান রোপণ নিয়ে চরম বিপাকে পরেছেন।

এর আগে প্রায় ২০/২৫ দিন আগে তাদের চাষকৃত প্রায় এক একর পুকুরে কে বা কাহারা বিষ প্রয়োগ করে। এতে পুকুরে থাকা রুই, মৃগেল, সিলভার কার্পসহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দুই লাখ টাকার মাছ মারা যায় বলে দাবি করেন তারা। রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ বলেন, ধানের চারাগাছে এবং আলু ক্ষেতে আগাছানাশক স্প্রে করে পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়