খরস্রোতা গাজনার বিলে মাছের পরিবর্তে পেঁয়াজ

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৩, ২০২৩, ০৯:৩৮ রাত
আপডেট: জানুয়ারী ২৩, ২০২৩, ০৯:৩৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

সুজানগর (পাবনা) প্রতিনিধি: পাবনার সুজানগরের এক সময়ের প্রচণ্ড খরস্রোতা ঐতিহ্যবাহী গাজনার বিল চলতি মৌসুমে শুকিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। সে কারণে বিলে এখন আর তেমন মাছের দেখা মিলছে না। তবে বিলে এখন মাছ পাওয়া না গেলেও বিলের অধিকাংশ উঁচু জমিতে পেঁয়াজ শোভা পাচ্ছে।

উপজেলা মৎস্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সরকারি এবং ব্যক্তি মালিকানা মিলে প্রায় ৬ হাজার হেক্টর জমি নিয়ে গড়ে ীঠা ওই গাজনার বিলে এক সময় সারা বছর পানি থৈথৈ করতো। সে সময় উপজেলার মৎস্যজীবীরা বিলে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করতো। কিন্তু বর্তমানে বিলটিতে আর সারা বছর পানি থাকে না। বছরের ৬ মাস পানি থাকলেও আর ৬ মাস শুকনো থাকে।

চলতি মৌসুমে বিলের কিছু কিছু অংশে পানি থাকলেও বেশিরভাগ উঁচু এলাকা শুকিয়ে গেছে। ফলে বিলপাড়ের কৃষকেরা শুকিয়ে যাওয়া ওই জমিতে পেঁয়াজ আবাদ করেছে। বর্তমানে বিল জুড়ে মাছের পরিবর্তে শোভা পাচ্ছে শুধু পেঁয়াজ আর পেঁয়াজ। বিল পাড়ের খয়রান গ্রামের কৃষক আব্দুর রহমান বলেন, গাজনার বিলে কখনও ফসল আবাদ করা যাবে একথা ভাবাই যায়নি। গাজনার বিল শুকিয়ে যাওয়ায় পেঁয়াজ ও ধানসহ বিভিন্ন ফসল আবাদ হচ্ছে।

গাজনার বিলে পেঁয়াজ ও ধান আবাদ করে অনেক কৃষক স্বাবলম্বী হয়েছেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রাফিউল ইসলাম বলেন, চলতি মৌসুমে গাজনার বিলে মাছের দেখা না মিললেও বিলের উঁচু জমিতে আবাদ করা পেঁয়াজের দেখা মিলছে। আশা করছি গাজনার বিলের পেঁয়াজে কৃষকের ভাগ্য বদলে যাবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়