নাগেশ্বরীতে সন্ত্রাসী হামলায় ইউপি চেয়ারম্যান আহত

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৪, ২০২৩, ০২:২৯ দুপুর
আপডেট: জানুয়ারী ২৪, ২০২৩, ০২:২৯ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে সাবেক চেয়ারম্যানের ভাইয়ের হামলায় বর্তমান চেয়ারম্যান গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের বন্ধুর বাজারে।

এলাকাবাসী জানান, সোমবার রাত ৯টার দিকে বামনডাঙ্গা বন্ধুর বাজারে নিজের অফিসে কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করছিলেন বামনডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান রনি। এ সময় উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা ওই ইাউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেনের ছোট ভাই সৈয়দ ও টুনকুর নেতৃত্বে ১০-১২ জন দুর্বৃত্ত লাঠি, লোহার রড নিয়ে তার ওপরে অতর্কিত হামলা চালায়। গুরুতর আহত অবস্থায় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নাগেশ^রী হাসপাতালে পাঠায়। পরে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এরপর অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য মঙ্গলবার তাকে ঢাকায় নেয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন ৪নং ওয়ার্ডে সদস্য নূরুন্নবী ইসলাম বলেন, আমরা গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে চেয়ারম্যানের সাথে মিটিং করছিলাম। আকস্মিক এ ঘটনায় আমরা হকচকিয়ে যাই। কিছু বুঝে ওঠার আগেই হামলাকারী সাবেক চেয়ারম্যানের দুই ভাই তাদের সহযোগিদের নিয়ে দ্রুত সটকে পড়েন।

এ ঘটনায় সোমবার রাতেই নাগেশ্বরী থানায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করেন চেয়ারম্যান রনির বাবা শাহ আলম।

৮নং ওয়ার্ড সদস্য ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সম্পাদক আবেদ আলী জানান, গত ১৬ জানুয়ারি অতিরিক্ত মালামাল বোঝাই একটি নৌকা দুধকুমারে ডুবে যায়। এতে প্রাণ যায় এক নারীর। সেদিন ওই নৌকায় যে ধান ওঠানো হয়েছিল তা ছিল সাবেক চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেনের ছোট ভাইয়ের। এ নিয়ে গত ২২ জানুয়ারি সন্ধ্যায় বন্ধুর বাজারে চেয়ারম্যান রনির বাবা শাহ আলমের সাথে সাবেক চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেনের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে। এরই রেশ ধরে চেয়ারম্যানের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

সাবেক চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন জানান, বিনা কারণে চেয়ারম্যানের বাবা শাহ আলম রবিবার সন্ধ্যায় বন্ধুর বাজারে আমাকে প্রকাশ্যে মারধর করে। এ ঘটনায় উত্তেজিত জনতা সোমবার চেয়ারম্যানের ওপর হামলা চালায়। শুনেছি উত্তেজিত জনতার দলে আমার ছোট দুই ভাইও ছিল। তবে বিস্তারিত জানি না।

নাগেশ্বরী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নবীউল হাসান জানান, অভিযোগ পেয়েছি। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়