একই জমিতে সাথী সবজির চাষাবাদ

সিরাজগঞ্জে টমেটোর বাম্পার ফলনে লাভবান কৃষক

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৪, ২০২৩, ০৯:৫৮ রাত
আপডেট: জানুয়ারী ২৪, ২০২৩, ০৯:৫৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় এবার শীতকালীন আগাম টমেটোর বাম্পার ফলন হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূল থাকায় এবং বাজারে ভাল দাম পাওয়ায় টমেটো বিক্রি করে লাভবান হয়েছে জেলার কৃষকরা। একই সাথে টমেটোর জমিতে সাথী সবজির চাষাবাদ করে বারো মাসই টাকা আয় করছে তারা।

সিরাজগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় প্রতি বছর শীতকালীন আগাম টমেটোর চাষাবাদ করে কৃষকরা। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। আবহাওয়া ভাল থাকায় কৃষকদের ক্ষেতে খেতে টমেটোর বাম্পার ফলন হয়েছে। প্রতিটি গাছেই কাঁচা পাকা টমেটোয় ভরে আছে। খেত থেকে টমেটো তোলা ও বিক্রি নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা।

আগাম ওঠার কারণে এবার বাজারে টমেটোর ভাল দাম পেয়েছে কৃষকরা। এখানকার কৃষকদের উৎপাদিত টমেটো জেলার চাহিদা মিটিয়ে ঢাকাসহ সারা দেশে বাজার যাত করা হচ্ছে। জেলার সবচেয়ে বেশি টমেটো চাষাবাদ হয়েছে কাজিপুর উপজেলায়। এ উপজেলায় প্রায় ১ হাজার বিঘা জমিতে টমেটো চাষাবাদ হয়েছে। ফলও হয়েছে ভাল। ইতোমধ্যে আগাম টমেটো বিক্রি করে ভাল লাভবান হয়েছে কৃষকরা।

কাজিপুরের রৌহাবাড়ি গ্রামের কৃষক গোলাম মোস্তফা জানান, ৩০ শতক জমিতে এবার টমেটো চাষাবাদ করেছে। এতে তার খরচ হয়েছে প্রায় ৩৫ হাজার টাকা। ইতোমধ্যে তিনি প্রায় ৮০ হাজার টমেটো বিক্রি করেছেন। আরও ৬০/৭০ হাজার টমেটো বিক্রি হবে। এই কৃষক জানান, টমেটোর মাচার নিচে সাথী ফসল হিসেবে পটল, খিরা, ঝিঙ্গা লাগিয়েছেন। টমেটো বিক্রি শেষ হলে বাকি সবজি এই মাচাতেই উঠবে। এখান থেকে বাড়তি আয় হবে তার।

তার মতো এই এলাকার শতাধিক কৃষক কৃষি বিভাগের পরার্মশে টমেটো এবং সাথী সবজি চাষাবাদ করেছেন। দীর্ঘদিন ধরে তারা এ পদ্ধতিকে টমেটো এবং সবজি চাষাবাদ করে এখন সচ্ছল স্বাবলম্বী। কাজিপুর উপজেলা কৃষি কর্মকতা কৃষিবিদ মো: রেজাউল করিম জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এক ইঞ্চি জমিও যাতে ফাঁকা না থাকে সেজন্য উপজেলার কৃষকদের সব ধরনের ফসল চাষাবাদে তাগিদ দিচ্ছি।

এ উপজেলায় প্রতি বছর কৃষকরা আগাম টমেটো চাষাবাদ করে। আমরা তাদের পরার্মশ দিয়েছি টমেটোর সাথে বিভিন্ন ধরনের সাথী সবজি চাষাবাদের। টমেটোর মাচার নিচে তারা এসব সবজির চারা লাগায়। টমেটো বিক্রির পর এক খরচে ওই জমি থেকে বছর জুড়ে কৃষকরা অন্য সবজি বিক্রি করে বাড়তি আয় করছে।

এভাবে টমেটো এবং সাথী সবজি বিক্রি করে এখানকার কৃষকরা এখন সচ্ছল স্বাবলম্বী। ফসল চাষাবাদের পাশাপাশি আমরা কৃষকদের এমন চাষাবাদ করার তাগিদ দিচ্ছি। এজন্য কৃষকদের সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে। সিরাজগঞ্জ জেলায় এবার ৩৩৩ হেক্টর জমিতে টমেটোর চাষাবাদ হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়